ডা: অনিশ কুমার সরকার

চেয়ারম্যান, SOFEN
ডা: অনিশ কুমার সরকার

এক. শিক্ষা প্রতিষ্ঠান : সাধারণ শিক্ষার পাশাপাশি জীবনমুখি বৃত্তিমূলক প্রশিক্ষণ প্রদানের মাধ্যমে সমাজের দুস্থ অবহেলিত ও কর্মজীবী শিশুদের সাবলম্বী ও কর্মক্ষম করে তোলার লক্ষ্যে সফেন ইন্টারন্যাশনাল স্কুল (ঝওঝ) নামে স্বতন্ত্র একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলা।

দুই. সফেন গ্রন্থশালা : সফেনের একটি গ্রন্থশালা বা পাঠাগার থাকবে। এই লক্ষ্যে পর্যায়ক্রমে উলেস্নখিত পদক্ষেপ নেওয়া যেতে পারে- ১. স্থান ব্যবস্থাপনা ২. সেলফ্‌ ব্যবস্থাপনা ৩. বই সংগ্রহ ৪. ক্যাটালগ ব্যবস্থাপনা ৫. সিটিং ব্যবস্থাপনা ৬. প্রয়োজনীয় কর্মচারী নিয়োগ যেমন ক. লাইব্রেরি সহকারী খ. সিকিউরিটি গার্ড গ. পিয়ন ইত্যাদি।

তিন. পত্রিকা : সফেন এর একটি মাসিক পত্রিকা থাকবে প্রস্ত্মাবিত নাম সময়ের কণ্ঠস্বর। যার মাধ্যমে- ১. গুনীজনদের লেখা প্রকাশ ২. লেখা-পড়া বিষয়ক লেখা ৩. বিজ্ঞান ও কম্পিউটার বিষয়ক জ্ঞানচর্চা ৪. পাঠক ফোরাম গঠন এবং ৫. কুইজ ও পুরস্কারের ব্যবস্থা করে দেশ ও জাতি গঠনে কার্যকর ভূমিকা পালন করা।

চার. সফেন শিক্ষা বৃত্তি : সফেন শিক্ষা বৃত্তি প্রবর্তনের মাধ্যমে দরিদ্র ও মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের সঠিকভাবে নির্বাচনের মাধ্যমে শিক্ষা ক্ষেত্রে পৃষ্ঠপোষকতা প্রদান করা।

পাঁচ. শুভেচ্ছা বিনিময় : সফেন চেতনার ব্যাপক প্রচার ও প্রসারের লক্ষ্যে বিশেষ উৎসবগুলিতে পুণর্মিলনী ও শুভেচ্ছা কার্ড প্রেরণের মাধ্যমে হৃদ্যত্বা ও সম্প্রীতির বন্ধন দৃঢ় করা।

ছয়. ত্রাণ কার্যক্রম : ঈদ, পূঁজা ও বিভিন্ন ধর্মীয় উৎসবে জাতি ধর্ম নির্বিশেষে গরীব ও দুঃস্থ শিশু এবং নারী-পুরম্নষের মাঝে নগদ অর্থ ও ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করা।
সাত. বর্ষপঞ্জি প্রকাশ : সফেন এর বাৎসরিক কর্মকা- সম্বলিত বর্ষপঞ্জি প্রকাশ করা, যাতে মাদক, যৌতুক ও এসিড নিক্ষেপের বিরম্নদ্ধে বিভিন্ন স্স্নোগান থাকবে।

আট. রক্তদান কর্মসূচি : সেবার মন্ত্রে উদ্ভাসিত হয়ে বৎসরে এক বা একাধিক বার স্বেচ্ছায় সফেনের পক্ষ থেকে রক্তদান কর্মসূচি পালন।

নয়. বিভাগ ও জেলা ভিত্তিক কার্যক্রম : সারা বাংলাদেশে অচিরেই তৃণমূল পর্যায়ে শিক্ষা, সংস্কৃতি, সমাজকল্যাণমূলক নানাবিধ সেবা কার্যক্রম শুরম্ন করা।

দশ. মহিলা বিবাহ : দুঃস্থ, অসহায়, অনাথ ও এসিড দগ্ধ মেয়েদের বিবাহ অনুষ্ঠানে আর্থিক সহযোগিতাসহ সামগ্রিক সহয়তা প্রদান এবং যৌতুক বিহীন বিয়ের ব্যবস্থা করা।

Socials